মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আর কলকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যে আইপিএল ২০২০-র পঞ্চম ম্যাচ আবুধাবির শেখ জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে। এই ম্যাচে নিজেদের দুর্দান্ত প্রদর্শনের সৌজন্যে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের দল ৪৯ রানের ব্যবধানে জিতে নিয়েছে আর এই ম্যাচ জয়ের ফলেই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স পয়েন্টস টেবিলে ২টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টসও অর্জন করেছে।

এই ম্যাচের টস কলকাতা নাইট রাইডার্সের দল জেতে আর প্রথমে বল করার সিদ্ধান্ত নেয়। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের শুরুটা খারাপ হয়, ওপেনিং ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি’কক (১রান) দলের মাত্র ৮ রানের স্কোরেই প্যাভিলিয়নে ফিরে যান।

তবে এরপর দ্বিতীয় উইকেটের হয়ে অধিনায়ক রোহিত শর্মা আর সূর্যকুমার যাদব ৯০ রানের একটি দুর্দান্ত পার্টনারশিপ গড়েন। এই দুই ব্যাটসম্যানের এই দুর্দান্ত পার্টনারশিপ আর শেষে হার্দিক পাণ্ডিয়া আর কায়রন পোলার্ডের কিছু ভালো শটের কারণেই মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স দল নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৯৫ রানের বড়ো স্কোর করতে সফল হয়।

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে সবচেয়ে বেশি ৫৪ বলে ৮০ রানের ইনিংস খেলেন রোহিত শর্মা। অন্যদিকে দলের হয়ে ২৮ বলে ৪৭ রানের ইনিংস সূর্যকুমার যাদব খেলেন। কেকেআরের হয়ে শিভম মাভি নিজের ৪ ওভারে ৩২ রান দিয়ে মোট ২ উইকেট নেন।

জবাবে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কলকাতা নাইট রাইডার্সেরও শুরুটা খারাপ হয়। দলের দুই ওপেনার শুভমান গিল আর সুনীল নারিন দলের মাত্র ২৫ রানের স্কোরে আউট হয়ে যান। তবে এরপর তৃতীয় উইকেটের হয়ে নীতিশ রাণা আর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক ৪৬ রানের দুর্দান্ত পার্টনারশিপ গড়েন।

এই পার্টনারশিপ ভাঙার পর কলকাতা নাইট রাইডার্সের ইনিংস ছন্নছাড়া হয়ে যায় আর নিয়মিত অন্তরালে দল নিজেদের উইকেট হারাতে থাকে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের দল মুম্বাইয়ের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৪৬ রানই করতে পারে। কলকাতার হয়ে সবচেয়ে বেশি ১২ বলে ৩৩ রানের ইনিংস প্যাট কমিন্স খেলেন।

অন্যদিকে অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক ২৩ বলে ৩৩ রান করেন। দীনেশ কার্তিক অ্যান্দ্রে রাসেলকে যথেষ্ট নীচের দিকে ব্যাটিং করতে পাঠান, যা কোথাও না কোথাও দীনেশ কার্তিকের সবচেয়ে বড় ভুল আর তার ফলাফল এই ম্যাচে দলকে ভুগতে হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *